ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়


ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়



বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং খুবই জনপ্রিয় একটি পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটা সত্য যে   আধুনিকতার ছোঁয়ায় যুগ বদলে গেছে এবং সামনে আরো অনেকখানি বদলে যাবে। এখন ডিজিটাল যুগ এবং সকল কাজ প্রায় ইন্টারনেটের মাধ্যমে হয়ে থাকে।

 

ডিজিটাল এই সময়ে আপনার যদি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্বন্ধে কোন প্রকার জ্ঞান না থাকে তাহলে সত্যই আশ্চর্যজনক কথা। বর্তমান সময়ে এটা বলা যায় যে আপনার যদি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে থাকে এবং আপনি যদি আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের ডিজিটাল  মার্কেটিং না করেন, তাহলে সে দিন খুব বেশি দূরে নেই যে আপনি দোকানে বসে বসে  শুধু হাওয়া বাতাস খাবেন আর  মাছি মারবেন।


বাংলাতে একটি প্রবাদ রয়েছে যে, প্রচারেই প্রসার। আপনি যদি আপনার পন্য বা প্রোডাক্টের প্রচার প্রসার না করেন তাহলে আপনাকে ব্যবসার ক্ষেত্রে সবসময় হাত গুটিয়ে বসে থাকতে হবে। আর এটাই স্বাভাবিক। আপনার ব্যবসা নেই বলে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে জ্ঞান ধারন করবেন না অথবা এ নিয়ে নিজের দক্ষতা অর্জন করবেন না তহলেও আপনি ভুল পথে রয়েছেন। আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং জানতে হবে কারণ –


ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে কিছু তথ্য

১) 2020 সলের পর 90% মর্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং হবে। আর এটা বর্তমানে আপনার নিজের চোখে দেখতে পারছেন। করোনাকালে মানুষ অনলাইনে বেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কাজকর্ম করেছেন। 


২) এখনই শুরু না করলে আমাজন, আলী বাবা যদি বাংলাদেশ অ্যাভেলেবল ভাবে এসে পরে তাহলে আমাদেরকে মার্কেটে টিকে থাকা যাবে না। 


৩) ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে জ্ঞান থাকলে আপনি ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করতে পারবেন। 


৪) ডিজিটাল মার্কেটিং বিশাল একটি জায়গা। চাইলে একে পেশা হিসেবে নিতে পারবেন কারণ এর মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের ব্যাপারে সহজে কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানকে সহজেই উপরের পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারবেন। 


৫) আপনি ডিজিটাল মার্কেটিংকে পেশা হিসেবে না নিলে কিংবা আপনার নিজের ব্যবসায় প্রয়োগ না করলেও আপনার এটি নিয়ে কিছু জ্ঞন থাকার দরকার। তা না হলে আপনি  বিভিন্ন জায়গায় প্রতারনার শিকার হবেন।


ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

কোন একটি কোম্পানি খোলার পর সেই কোম্পানি সবার সাথে তাদের কোম্পানির কথা অফলাইনে অর্থাৎ মানুষটি বিভিন্ন ভাবে বলে প্রচার-প্রসার করে থাকেন। আর এই কাজটি যখন খুব সহজেই এবং খুব কম সময়ের মধ্যে অনলাইনে করা হয় তখন তাকে বলা হয় ডিজিটাল মার্কেটিং। এককথায় অনলাইনের মাধ্যমে কোন কিছুর প্রচার অথবা প্রসার করার নামই হচ্ছে অনলাইন মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিংডিজিটাল মার্কেটিং বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে করা যায় যেমন: ফেসবুক, টুইটার,লিংকডইন,ইনস্টাগ্রাম,পিন্টারেস্ট গুগল,ইয়াহু, বিং ইত্যাদি।

সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্যে ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক সারাদিন ঘোরাফেরা করে। বাংলাদেশের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষ ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি টাইম দিয়ে করে থাকেন। তাই বাংলাদেশসহ ভারত-পাকিস্তান ইত্যাদি দেশের মানুষ বেশিরভাগ ফেসবুকে মার্কেটিং করে থাকেন। মূলত ফেসবুক মার্কেটিং টি হচ্ছে একটি জনপ্রিয় মার্কেটিং মাধ্যম যার সাহায্যে ফেসবুকে কিছু পরিমাণ অর্থ পেমেন্ট করে এডভার্টাইজিং এর মাধ্যমে খুব সহজেই ডিজিটাল মার্কেটিং পরিচালনা করা যায়।আবার অন্যদিকে ফেসবুকে ফ্রি মার্কেটিং করেও মোটামুটি ভালো পরিমাণ একটি ট্রাফিক পাওয়া যায়।

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের মধ্যে যা রয়েছে

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের উপর কতগুলো বিষয় রয়েছে যেগুলো জানা অত্যন্ত জরুরী আপনি যদি একজন ডিজিটাল মার্কেটার হতে চান তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রতিটি সেক্টরে আপনাকে অনেক অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হতে হবে।নিচে ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিষয় গুলো একটি একটি করে উল্লেখ করা হলো: 

  1. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  2. গুগোল মার্কেটিং
  3. ইয়াহু মার্কেটিং
  4. ইমেইল মার্কেটিং 
  5. এসএমএস মার্কেটিং 
  6. সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন 
  7. মোবাইল মার্কেটিং 
  8. সিপিএ মার্কেটিং 
  9. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং 
  10. লিড জেনারেশন

উপরের কয়েকটি ছাড়াও ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরো বেশ কিছু অংশ রয়েছে। তবে উপরে দেখানো দশটি ডিজিটাল মার্কেটিং এর পদ্ধতি গুলো বেশি লাভজনক প্রচলিত মাধ্যম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মার্কেটিং।

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের সুবিধা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর নানাবিধ সুবিধা রয়েছে।ধরুন,আপনার কোন একটি পণ্যের ব্যবসা রয়েছে। এখন আপনার প্রোডাক্ট বিক্রি হচ্ছে না অথবা আপনি চাচ্ছেন আপনার প্রোডাক্ট সবার থেকে বেশি বিক্রি হোক। এক্ষেত্রে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং অবলম্বন করে খুব সহজেই ঘরে বসে আপনার পণ্যটি বিক্রি করে দিতে পারবেন এবং সফলতা অর্জন করতে পারবেন। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের ব্যবসাসহ যে কারো ব্যবসা সহজেই অনেক সামনে এগিয়ে নিতে পারবেন।এক্ষেত্রে সঠিকভাবে মার্কেটিং করতে পারলে পরিশ্রম খুব কম করে ভালো সফলতা পাওয়ার আশা করা যায়। এসব কারণে দিন দিন ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

ডিজিটাল মার্কেটিং কোথায় শিখবো?

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার জন্য আমি আপনাকে কোন প্রকার করছে সাজেস্ট করবো না।কারণ বর্তমানে আমাদের দেশে অনেক আইটি কোম্পানি রয়েছে যারা কোর্স করানোর নামে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।অথচ সঠিকভাবে কিছু শেখানো হয় না।

এখন আপনি কি করবেন? উত্তরটা খুবই সোজা। সর্বপ্রথম আপনি গুগল এর মধ্যে থাকা ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়াল সম্পর্কে রিসার্চ করে খুঁটিনাটি জেনে নিন।গুগোল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে আপনি সকল কিছু খুব সহজেই খুঁজে পাবেন। আশা করি শুধুমাত্র গুগল ব্যবহার করে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে অনেক কিছু জেনে নিতে পারবেন। আবার ইউটিউব এর মধ্যেও অনেক ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপরে টিউটোরিয়াল রয়েছে সেই টিউটোরিয়াল গুলো দেখবেন। 

গুগোল এবং ইউটিউব রিসার্চ করে আস্তে আস্তে ডিজিটাল মার্কেটিং প্র্যাকটিস করা শুরু করে দিন। কিছুদিন গেলে দেখবেন আপনি নিজে নিজেই  সবকিছু শিখে গেছেন। আপনি যদি গুগোল এবং ইউটিউব রিসার্চ করে ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে যদি ক্লিয়ার ধারণা না পান অথবা বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে আপনি বিকল্প পদ্ধতি অবলম্বন করে দেখতে পারেন। অর্থাৎ আপনি আপনার নিকটস্থ ভালো একটি আইটি প্রতিষ্ঠান এরমধ্যে কোর্স করে নিতে পারেন।

কিভাবে আয় করা যায়?

অনলাইন এবং অফলাইন এই দুটোকে কাজে লাগিয়ে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করার নানারকম পথ অথবা পন্থা রয়েছে। মানুষ বিভিন্ন রকমের কাজ করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করে। মোট কথা অনলাইনে এমন কোন কাজ নেই যা পাওয়া যায় না। মোটামুটি একটি দক্ষতা থাকলে এখানে সহজেই ভালো কিছু করা সম্ভব।আপনার যেকোনো একটি দক্ষতা থাকলে আপনি সেই বিষয়ে অনলাইনে কাজ করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। ডিজিটাল মার্কেটিং হল এমন একটি মাধ্যম যেটাতে অনলাইন এবং অফলাইন এই দুটোকেই কাজে লাগিয়ে টাকা আয় করা সম্ভব

বিশেষ করে যারা নতুন অবস্থায় ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা উপার্জন করতে চায় তাদের জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং অন্যতম একটি মাধ্যম। নতুনরা খুব সহজেই এই কাজটি করে টাকা আয় করতে পারে। অনলাইনে কাজের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং করতে চাইলে সেই সকল বিষয় শিখতে গেলে অনেক সময় লাগতে পারে। কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং খুব কম সময়ের মধ্যে শেখা সম্ভব।এক্ষেত্রে শুধুমাত্র নিজে নিজে কিছুদিন কাজটি প্র্যাকটিস করে তারপর প্রফেশনালভাবে কাজ শুরু করতে পারবেন।


মনে রাখবেন, যত দিন যাচ্ছে অনলাইনে কম্পিটিশনের হার তত বেশি বৃদ্ধি পাচ্ছে। দিন দিন বিশ্বে ফ্রিল্যান্সারদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর যার যত ভালো কাজের অভিজ্ঞতা থাকবে সে তত বেশি সফল হতে পারবে। তাই সঠিক এবং ভালো পরিমাণ অভিজ্ঞতা নিয়ে তারপরে ইনকামের কথা চিন্তা করতে হবে।নিচে ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইন এবং অফলাইনে আয় করার উপায়গুলো শেয়ার করা হলো।


অনলাইনে আয় করার উপায়

ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইনে টাকা আয় করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং সম্বন্ধে খুব ভালো অভিজ্ঞতা অর্জন করে নিতে হবে। আপনি যখন পুরোপুরি ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সপার্ট হয়ে যাবেন তখন আপনি আপনার পছন্দ মত যে কোন একটি মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করবেন। হতে পারে সেটি ফাইবার অথবা আপওয়ার্ক

আপনার পছন্দ অনুযায়ী নির্বাচন করা মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করার পর ডিজিটাল মার্কেটিং এর যেকোনো একটি মাধ্যম বা বিষয়ের উপরে একটি গিগ তৈরি করবেন। হতে পারে সেটি ফেসবুক মার্কেটিং। আর এই গিগ ভিতর উল্লেখ থাকবে যে, আপনি কোন কাজের উপরে কত ডেলিভারি চার্জ নিয়ে থাকবেন। গিগটি আপনাকে সুন্দর করে সাজাতে হবে। এভাবে  আপনার দক্ষতার উপরে চার-পাঁচটি এসইও সমৃদ্ধ গিগ তৈরি করবেন।

নতুন অবস্থায় অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ পেতে আপনার একটু সমস্যা অথবা দেরি হতে পারে। এক্ষেত্রে আপনি বিড করে কাজ নিবেন। তারপর আপনি যখন আস্তে আস্তে  ভালোভাবে কয়েকটি কাজ ক্লাইন্টকে ডেলিভারি দিবেন এবং ফাইভস্টার রিভিউ পাবেন তখন আপনার গিগটি মার্কেটপ্লেস এরমধ্যে রেঙ্ক হতে থাকবে। আর যত রেঙ্ক  হবে আপনি  অটোমেটিকলি ততই কাজ পেতে থাকবেন।  এভাবে একসময় আপনার কাজের পরিমাণ অনেক বেড়ে যাবে। 

অফলাইনে আয় করার উপায়

ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইনে টাকা আয় করার জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি সরাসরি ক্লায়েন্টের সাথে কথা বলে চুক্তিভিত্তিক কাজ করে টাকা উপার্জন করতে পারেন।মূলত হতো অফলাইনে আয় করা অনেক কষ্টদায়ক। তবে আপনি যদি একবার চুক্তিভিত্তিক পার্মানেন্ট ক্লায়েন্ট পেয়ে যান তাহলে তো অনেক ভালো। হোক সেটা অনলাইন অথবা অফলাইন।

মনে করুন, টঙ্গীতে আপনার ইমন ট্রেডার্স অথবা ঋতুপর্ণা ট্রেডার্স নামে একটি নতুন কাপড়ের দোকান রয়েছে।এখন আপনি চাচ্ছেন যে, আপনার এলাকাতে যতসব মানুষ রয়েছে তারা সবাই আপনার দোকানটিকে খুব ভালোভাবে চিনুক এবং আপনার প্রোডাক্ট বিক্রি বৃদ্ধি পাক। এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে ডিজিটাল মার্কেটিং। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি আপনার দোকানের পরিচিতি লাভ করাতে পারেন এবং প্রোডাক্ট সেল বাড়াতে পারেন।

উপরে শুধুমাত্র ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় সম্পর্কে হালকা কিছু পদ্ধতি শেয়ার করা হয়েছে। উপরোক্ত পদ্ধতি গুলো ছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের পদ্ধতি রয়েছে যেগুলো অবলম্বন করে আপনি খুব সহজেই ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সপার্ট হয়ে টাকা উপার্জন করতে পারবেন।একটু কষ্ট করে গুগলে রিসার্চ করলে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

6 মন্তব্যসমূহ

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

  1. Very good article...........
    Thank you so much for the more informational Posts...!

    উত্তরমুছুন
  2. Notun obostay digital marketing sikar valo YouTube channel suggest Koren bhi.plz

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আপনাকে সম্পূর্ণ ফ্রিতে প্রফেশনাল মনের গাইড লাইন দেওয়ার চেষ্টা করব আপনার মন্তব্যটি Contact Us পেজের মাধ্যমে আমাদের জানান

      মুছুন
  3. এটা অনেক ভালো

    উত্তরমুছুন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

নবীনতর পূর্বতন