অনলাইন জব করার উপায়

অনলাইন জব: বর্তমান সময়ে আমরা এমন একটি বিশ্বে বসবাস করছি যেখানে ঘরে বসে সহজেই বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে ডিগ্রী পাওয়া যায়। প্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে এখন সব কিছুই ঘরে বসে করা সম্ভব। যদি আপনি একজন কলেজ শিক্ষার্থী হন বা গৃহিণী অথবা কোনো কোম্পানির চাকরির সাথে যুক্ত আছেন, সেই সাথে আপনি অনলাইনে ফ্রীলান্সিং কাজ খুঁজছেন যেমন- টাইপিং জব, তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার সেই স্বপ্নকে আরো এক ধাপ এগিয়ে দিবে।

অনলাইন জব

মূলত আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমরা আলোচনা করব কিভাবে অনলাইন job করে আপনি নিজে স্বনির্ভর হতে পারবেন। এক কথায় বলতে গেলে আজকে আমরা পার্ট টাইম ফ্রীলান্স বা মুক্ত পেশার কাজ করে কিভাবে কিছু এক্সট্রা পয়সা পকেটে আনা যায় সেই উপায়গুলো জানার চেষ্টা করবো। তাহলে চলুন দেরী না করে বিষয়গুলো জেনে নেয়া যাক।

অনলাইন জব কি? 

ইন্টারনেট এবং প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঘরে বসে থেকেই মোবাইল, কম্পিউটার, ল্যাপটপ বা অন্যান্য ডিভাইস এর মাধ্যমে কোনো কোম্পানি বা ইন্ডিভিজুয়াল ব্যক্তির কাজ ডিজিটালিভাবে করে দেওয়াকে অনলাইন জব বলে।

অনেকের প্রশ্ন, অনলাইন জব করতে চাই কিন্তু কোথাই আর অনলাইন জব কিভাবে করব? আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সেইসব প্রশ্নের উত্তরগুলো দেওয়ার চেষ্টা করবো। 

নিচে যে কাজগুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে সেগুলো পেতে হয়তো আপনার একটু সময় লাগবে। কিন্তু যখন আপনি এই জব/কাজ  গুলো পেয়ে যাবেন তখন লং টাইম এ জব করে একটা ভালো ক্যারিয়ার বা বিজনেস খাড়া করতে পারেন। যাইহোক তাহলে চলুন নিচে সেই পন্থা গুলো দেখা যাক –

আরো পড়ুন:


সেরা ১০ টি অনলাইন জব

আর্টিকেল শুরু করার আগে আপনাদের একটা কথা পরিষ্কার করেদিতে চাই, এই কাজগুলো আপনাকে  ঘরে বসে অনলাইনে করতে হবে। কিন্তু কাজগুলো যথেষ্ট পরিশ্রমের কাজ এবং এইগুলির কম্পেটিশনও বেশ ভালো পরিমাণ রয়েছে। তবে যারা ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই লিখে গুগলে সার্চ করে তাদের এই আর্টিকেলটি অবশ্যই পড়া উচিত। আবার এগুলো মেয়েদের জন্য বেস্ট অনলাইন জব। 

আমি গুগলে নানান ধরনের আর্টিকেল এবং ইউটিউবে অনেক ভিডিও দেখেছি যেগুলোতে মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করে বা গেম খেলে ইনকাম করার ভিডিও তৈরি করে থাকে। সেগুলো থেকে সবসময় দূরে থাকার চেষ্টা করুন। কারণ বেশিরভাগ ভিডিও বা ইনফরমেশন সেখানে ফেইক হয়ে থাকে। তবে গেম খেলে আয় অথবা অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড সম্পর্কে কিছু পরিমাণ ভালো ইনফরমেশন পাবেন, যেগুলো থেকে আপনি স্বল্প আয় করতে পারবেন কিন্তু সেখান থেকে আপনি স্বনির্ভর হতে পারবেন না। 

এখানে আমি যে কাজগুলো আপনাদের জন্য শেয়ার করবো সেগুলো অনেকটা কষ্টসাধ্য হলেও এগুলো 100% রিয়েল। এতে পয়সা ও কাজ দুটুই পাবেন এবং এই কাজগুলি করে নিজের সফল ও সুনিশ্চিত ভবিষৎ তৈরি করতে পারবেন।তবে তার জন্য আপনার মধ্যে অবশ্যই চেষ্টা এবং ধৈর্য থাকতে হবে। তাহলে চলুন এখন সেই কাজগুলো সম্পর্কে জেনে নিই।

1) Search Engine Evaluator

আপনি হয়তো নানান ধরনের সার্চ ইঞ্জিনের নাম শুনে থাকবেন। যার মধ্যে অন্যতম হলো- গুগোল (google), বিং(bing), ইয়াহু (yahoo) ইত্যাদি। এছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে। সার্চ ইঞ্জিন হচ্ছে এমন একটি জিনিস যেখানে আমরা প্রতিনিয়ত নানান রকম অথবা নানান ধরনের জিনিস সম্পর্কে জানতে অথবা পেতে কোন কিছু লিখে সার্চ করি এবং তারা এর রেজাল্ট দেখায়।

এইসব বড় বড় সার্চ ইঞ্জিন কোম্পানিগুলো অনেক লোককে hire করে থাকেন। Hire করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে তাদের সার্চ রেজাল্ট সম্পর্কে গ্রাহকদের  ফিডব্যাক জানার জন্য। সার্চ ইঞ্জিন ঠিকঠাক কাজ করছে কিনা ,সার্চ ইঞ্জিন আরো কিভাবে ইউসার ফ্রেন্ডলি করা যায়, ইউসার কে সঠিক রেজাল্ট দেখানো ,এইসব বিভিন্ন কাজ Search Engine Evaluator রা করে থাকেন।

কিছু কোম্পানি রয়েছে যারা এসকল ধরণের জব বা কাজ দিয়ে থাকে। যদি আপনি এই কাজটা পেয়ে যান তাহলে আপনি প্রতি ঘন্টাই ১০ ডলার বা তার চেয়ে অনেক বেশী পরিমান উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। সব থেকে বড় বেপার হচ্ছে, এখানে কাজ করতে হলে আপনাকে অনেক বেশি শিক্ষিত হতে হবে এমন কোন কথা নেই। আপনার যদি ইন্টারনেট সম্পর্কে মোটামুটি অথবা ভালো পরিমাণ নলেজ বা জ্ঞান থাকে তাহলেই হবে।

ওয়েবসাইট:- appen.com, Lionbridge.


2) অনলাইন টিউটর

আপনি হয়তো নিজে পড়তে অথবা মানুষকে পড়াতে অর্থাৎ টিউশনি করতে পছন্দ করেন। হতে পারেন আপনি একজন কলেজ অথবা ইউনিভার্সিটির স্টুডেন্ট অথবা হোম টিচার। হয়তো আপনি পড়ানোর জন্য মত লোকালে খুব বেশি স্টুডেন্ট পাননা বা আপনার মন মত বেতন পান না। কিন্তু ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইন টিউটর দ্বারা আপনার নলেজকে এখন গোটা পৃথিবীর সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। আর সঙ্গে ভালো পারিশ্রমিক ও পাবেন।

কি অবাক লাগছে? আপনি ঠিক কথাই শুনেছেন। অনেক ছাত্র- ছাত্রী এবং শিক্ষকেরা অনলাইন টিচিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করে নিচ্ছেন। অন্যান্যরা যদি পারে অবশ্যই আপনিও পারবেন। আপনার মানুষকে শেয়ার করার জন্য কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে। আপনাদের সুবিধার্থে আমি সেগুলো নিচে লিংক দিয়ে দিচ্ছি। 

Average salary: $13-20/hour.

ওয়েবসাইট : Tutor.com and Wyzant.


3) সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার (Social Media Manager)

ফেসবুক,ইনস্টাগ্রাম,টুইটার এইসব সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলোতে আমরা অনেকেই প্রচুর সময় নষ্ট করি। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়াকে আমরা নিজেদের উপার্জনের অন্যতম উৎস হিসেবে বেছে নিতে পারি এটা হয়তো অনেকেই জানিনা। আপনার হয়তো কোন পেজ থাকতে পারে বা অনেক ফলোয়ার আছে যেখানে আপনি প্রচুর লাইক এবং কমেন্ট পান।

হয়তো আপনার পোস্টের প্রতি অনেকেই প্রভাবিত হয়। আপনি চাইলেই আপনার পেইজ বা ফেসবুককে ব্যবহার করে নিজের প্রফেশনাল ইনকামের সোর্স বা দোকানের মত করে বানাতে পারেন।

জি হ্যাঁ, মার্কেটে বহু কোম্পানি আছে যার এই ধরণের সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করার জন্য অনেক লোককে hire করে। আপনি ওই ধরণের কোম্পানিতে জব করে মাসে একটা মোটা টাকা স্যালারি পেতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনার ভালো পরিমাণ ফলোয়ার অথবা ফ্রেন্ডস থাকতে হবে। তাছাড়া আপনি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখে ইন্টার্নেশনাল মার্কেটপ্লেসগুলোতে ডিজিটাল মার্কেটের হিসেবে কাজ করতে পারেন। ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেসগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- ফাইবার, আপওয়ার্ক, গুরুডটকম,পিপল পার আওয়ার ইত্যাদি। তাছাড়া আপনি  যদি মার্কেটপ্লেস ছাড়া আগের উপায়ে ইনকাম করতে চান তাহলে জব পেতে নিজে পড়ুন।

কোথায় জব পাবেন: এই ধরণের জব পেতে হলে আপনাকে নিজে রিসার্চ করতে হবে। বিভিন্ন  job portals কোম্পানিতে খোজ খবর নিন এবং সেখানে আবেদন করুন।তাছাড়া আপনি যদি একজন সোশল মেডিয়া মারকেটিং হয়ে যান তাহলে অফলাইন অথবা অনলাইন দুই জায়গায় জব পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।


4) অনলাইন টাইপিং জব – (Freelance Writer)

বর্তমান সময়ে বিভিন্ন কম্পানি কনটেন্ট রাইটার খুঁজে থাকেন। তাদের ওয়েবসাইটে ব্লগ পোস্ট লেখার জন্য। বিভিন্ন নিউজ কোম্পানি প্রচুর রাইটার hire করেন। তাদের অডিয়েন্সকে প্রতিনিয়ত আপডেট করতে প্রচুর পোস্টের দরকার হয়। তাই তারা অনেক রাইটার hire করেন আর্টিকেল লেখার জন্য। কারণ বড় বড় নিউজপোর্টাল ওয়েবসাইটগুলো চালানোর জন্যে প্রচুর কনটেন্টের দরকার হয়। যা একজন অথবা দুইজনের মাধ্যমে কখনোই করা সম্ভব নয়।

সেই ভাবে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন পোস্ট বা এ আর্টিকেলের এর মাধ্যমে নিজের প্রোডাক্ট, ব্র্যান্ডকে তাদের অডিয়েন্সের কাছে প্রমোট করেন। আর এই পোস্ট গুলি লেখার জন্য পার্টটাইম-ফুল টাইম রাইটার hire করেন এই কোম্পানি গুলো। আপনি ফেসবুকে যে বিভিন্ন নিউজ দেখেন সেইসব নিউস গুলো বিভিন্ন রাইটারের মাধ্যমে লেখানো হয়। আর তারা এর পরিবর্তে মাস শেষে একটা মোটা স্যালারি পায়। আপনিও বিভিন্ন ভাষাতে রাইটিং করে দিনে ১ হাজার টাকা বা তার বেশি আয় করতে পারবেন। 

কোথায় জব পাবেন : এই ধরণের জব পেতে হলে আপনাকে নিজে রিসার্চ করতে হবে,বিভিন্ন job portals -যেমন Indeed,Naukri থেকে এপলাই করে কোনো কোম্পানি তে ফুল টাইম জব করতে পারবেন।এছাড়া বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট যেখানে পার্ট টাইম জব করতে পারেন।

আপনি চাইলে নিজের নামে সম্পূর্ণ ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে আর্টিকেল লিখে প্রতিদিন মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারবেন। তার জন্য হলুদ লেখাটির উপরে ক্লিক করে আমাদের সম্পূর্ণ ফ্রি কোর্স ব্লগিং করে আয় পর্ব 1 থেকে আজই শুরু করে দিন।


5) Transcriptionist

ট্রানস্ক্রিপশন হচ্ছে যেকোনো অডিও কে টেক্সট এ কনভার্ট করা। আপনাকে যেকোনো অডিওকে সেই ভাষাতে নির্ভুল টেক্সট এ রূপান্তরিত করতে হবে। এই ট্রানস্ক্রিপশন বেশিরভাগ ভিডিওতে সাবটাইটেল এর ব্যবহার করে।

বহু কোম্পানি আছেন এই ট্রানস্ক্রিপশন এর জন্য বিভিন্ন লোক কে hire করেন আর এই কাজের জন্য মোটা টাকা স্যালারি দেন।এখানে আপনি ঘটাই ১০ ডলার  বা তার বেশি পেতে পারেন। মূল কথা হচ্ছে এখানে যত দ্রুত টাইপ করতে পারবেন আপনি তত বেশি আয় করতে পারেন। 

কোথায় কাজ পাবেন :  TranscribeMe and Rev.


6) অনলাইন ডাটা এন্ট্রি

আপনি যদি অনেক দ্রুত নির্ভুলভাবে টাইপ করতে পারেন, তাহলে ডাটা এন্ট্রি জব করে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে সক্ষম হবেন। এখানে আপনি দুইভাবে জব করতে পারেন। একটি হচ্ছে অনলাইনে মুক্ত পেশা বা ফ্রিল্যান্সিং করে সেটা পার্টটাইম আর ফুলটাইম জব। যেমন আপনি বিভিন্ন জব পোর্টাল গিয়ে নানান কোম্পানির জন্য কাজ করতে পারেন।

বাংলাদেশে তেমন না পেলেও আপনি ইন্ডিয়াতে এরকম পার্ট টাইম অনলাইন ডাটা এন্ট্রি জবস অনেক পেয়ে যাবেন। আপনি-nokri.com,indeed.com এই সাইট গুলিতে ডাটা এন্ট্রি প্রচুর এডস দেখতে পাবেন। তাছাড়া আপনি বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট ও দেখতে পারেন।

বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ডাটা এন্ট্রি জব পাওয়ার জন্য কাজটি ভালো হবে শেখার পর অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে অ্যাকাউন্ট করে ফ্রীলান্সিং করা অনেক বেশি ভালো হবে। যেকোনো কাজের ক্ষেত্রে অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করা সম্ভব। 


7) Sell items on Amazon, Flipkart

অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্ট বাংলাদেশের তেমন এভেলেবেল না হলেও অন্যান্য দেশে অনেক জনপ্রিয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম। প্রচুর পরিমাণে মানুষ এই ওয়েবসাইট গুলিতে শপিং করে। আর এরফলে গ্রামে সবাই ঘরে বসে সমস্ত জিনিস পেয়ে যায়। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ইন্ডিয়াতেও প্রচুর পরিমাণে মানুষ এ সকল ই-কমার্স মার্কেটপ্লেসগুলো থেকে পণ্য কিনে থাকেন ।

আপনি যেকোন আইটেম সেটা নিজস্ব প্রোডাক্ট বা অন্যের তৈরি কোন জিনিস ,সেগুলি কে আপনি Amazon, flipkart লিস্ট করিয়ে বিক্রি করতে পারেন। বাংলাদেশের প্রচুর মানুষ অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্টসহ মার্কেটপ্লেসগুলোতে আফিলিয়েট একাউন্ট করে  অন্যের প্রোডাক্ট বিক্রি করার মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণ টাকা আয় করছেন। এই সকল মার্কেটপ্লেসগুলোতে বুদ্ধি খাটিয়ে আপনি ভাল রকম প্রফিট কমাতে পারেন তাও আবার ঘরে বসে।


8) virtual assistant work (ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট)

ইন্টারনেটের মাধ্যমে চাইলেই এখন ঘরে বসে অ্যাসিস্ট্যান্ট এর ও কাজ করা যায়। সেটা যেকোনো personal বিজনেসম্যান বা কোনো কোম্পানি হতে পারে। সেখানে প্রত্যেক দিনের যে নিত্য প্রয়োজনীয় অনলাইন কাজ গুলো করতে হয়। তার জন্য আপনাকে ফিজিক্যাল ভাবে মজুদ না থাকলেও চলবে।

যে কাজ গুলি ঘরে বসে রিমোটলি করা যায়, যেমন ব্লগিং, কনটেন্ট রাইটিং, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট,অ্যাড ক্যাম্পাস,ইমেইল ম্যানেজমেন্ট আরও বিভিন্ন ধরনের কাজ আছে যেগুলি বিভিন্ন কোম্পানি বা কোন বিজনেস পারসন পার্টটাইম -ফুল টাইম ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট hire করে।

কোথায় কাজ পাবেন : upwork.com, Fiverr, Guru. ইত্যাদি সহ আরো অনেক অনলাইন ফ্রীলান্স মার্কেটপ্লেস।


9) online reselling (অনলাইন রেসলিং) 

আপনি চাইলে অনলাইনে প্রোডাক্ট রেসলিং করে অনেক ভালো পরিমাণ প্রফিট জেনারেট করতে পারেন। রিসেলিং এর মাধ্যমে আপনি নির্দিষ্ট কোম্পানির প্রোডাক্ট নিজের পরিচিত বন্ধু বান্ধবের কাছে প্রোমট করে সেল করতে পারেন। বর্তমানে বাংলাদেশের বহু ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি রিসেলিং পদ্ধতির মাধ্যমে অনেক মোটা অংকের টাকা আয় করছেন।

যেমন ধরুন অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে।এর মধ্যে অনেক ভালো ভালো ইন্টার্নেশনাল ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে, যারা অনেক কম দামে ডোমেইন এবং হোস্টিং প্রবেশ করে থাকে। বাংলাদেশি কোম্পানিগুলো সেখান থেকে কম দামে ডোমেইন কিনে উচ্চমূল্যের বাংলাদেশীদের কাছে বিক্রি করে।

ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেসগুলোতে বাংলাদেশিরা সবাই পেমেন্ট করতে পারেনা। কারন সবার কাছে মাস্টারকার্ড নেই। মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশী কোম্পানিগুলো ডোমেইন হোস্টিং কিনে বাংলাদেশীদের কাছ থেকে বিকাশে পেমেন্ট নিয়ে থাকে। আর এখান থেকে প্রায়ই ডাবল টাকা ইনকাম করে থাকে। এরকম ডোমেইন-হোষ্টিং এফিলিয়েট কোম্পানি গুলোর মধ্যে অন্যতম কয়েকটি কোম্পানি নিচে তুলে ধরেছি। 

কোথায় পাবেন : Namecheap, Bluehost ইত্যাদি 


10) ইন্টারনেট ফ্রিল্যান্সার jobs

অনলাইন ব্যবহার করে পার্টটাইম হিসেবে অন্য লোকের যেকোনো ধরনের কাজ করে দেওয়াকে ফ্রীল্যান্স কাজ বলা হয়। অনেকে এটিকে ফ্রীলান্সিং জব বলে থাকেন। এক্ষেত্রে তিনি কাজের অর্ডার দেন তাকে বলা হয় বায়ার।আর যিনি কাজ করে দেন তাকে বলা হয় সেলার। একজন ভাই আর আপনাকে তার অনেকবার হায়ার করতে পারে। তাই ভালো একজন ক্লায়েন্ট বা বায়ার পেলে সেই বায়ার আপনাকে অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারে। আবার আবার কখনো কখনো আপনাকে বিভিন্ন ধরনের কম্পানি হায়ার করতে পারে।অনেক কোম্পানি আবার তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করার জন্য সারা জীবনের জন্য হায়ার করতে পারে। 

আমি আগেই কিছু ফ্রীলান্স কাজ সম্পর্কে আলোচনা করেছি যেমন- রাইটিং, transcribing। নিচে কয়েকটি ফ্রিল্যান্সিং কাজ বলে দিচ্ছি যেগুলো ফুল টাইম,পার্ট টাইম করতে পারবেন।
  • Graphic design 
  • Web design  
  • Video editing 
  • Sound design 
  • Search engine optimization (SEO) 
  • Programming 
  • Photography

আমাদের শেষ কথা,

আজকে আপনাদের সাথে উপরে অনলাইন জব অফার সম্পর্কে যতগুলো তথ্য তুলে ধরেছি সেগুলো সব করলে একশ পার্সেন্ট সত্যি এবং অথেন্টিক ইনফর্মেশন। আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ নিজের অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি। তাই উপরের কাজগুলো যে অনলাইনে অনেক ডিমান্ডেবল কাজে ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। 

উপরের কাজগুলো করার মাধ্যমে আমাদের দেশের হাজার হাজার তরুণ-তরুণী পার্ট টাইম বা ফুল টাইম অনলাইন জব করে প্রতিমাসে হাজার হাজার টাকা আয় করছেন। তাই আপনি ও যদি বাড়িতে বসে ফুল টাইম ইনকাম করতে চান, তাহলে উপরে দেওয়া পন্থা গুলি অবলম্বন করুন।

আজকের আর্টিকেলটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য অথবা প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে আমাদেরকে জানাতে পারেন।আমরা আপনার প্রশ্নের মন্তব্যের যথাযথ উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ

Post a Comment

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

নবীনতর পূর্বতন