জন্ম নিবন্ধনের ইংরেজি প্রতিশব্দ হচ্ছে বার্থ সার্টিফিকেট। আর এই বার্থ সার্টিফিকেট অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। শিক্ষা জীবন থেকে শুরু করে সরকারি-বেসরকারি প্রায় সকল ধরনের কাজের ক্ষেত্রে এটির প্রয়োজন পড়ে। যার ফলে আমরা শিক্ষাজীবন শুরু অথবা শুরুর পূর্বেই স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে বার্থ সার্টিফিকেট তৈরি করে ফেলি। 

অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করতে

বর্তমানের এই ডিজিটাল যুগে বার্থ সার্টিফিকেটসহ সকল কাজ অনলাইনের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকে। যেহেতু আমরা কাজটি অন্যজনের মাধ্যমে করিয়ে থাকি, সেহেতু আমরা জানি না যে- আমাদের জন্ম নিবন্ধনটিতে নাম-ঠিকানা কোন প্রকার ভুল রয়েছে কিনা।

এমনকি আমরা এটাও জানি না যে, আমাদের জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে সাবমিট করা হয়েছে কিনা! যদি ভুল থেকে থাকে তাহলে পরবর্তী সময়ে আমাদেরকে নানান ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তাই সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার পূর্বেই আমাদেরকে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। তাছাড়া আমাদের সকলেরই জানা দরকার যে, আমাদের বার্থ সার্টিফিকেটটি নির্ভুল এবং অনলাইনে আছে কিনা।

তাই আজকের এই টপিকে আমরা অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করতে যে পদ্ধতিগুলো অবলম্বন করতে হবে সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। এটি জানা মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে, আপনার জন্মনিবন্ধনের কোথাও কোন প্রকার ভুল রয়েছে কিনা এবং আপনার তথ্যটি অনলাইনে আছে কিনা। এটি জানা বা যাচাই করা আমাদের সকলের জন্যই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

কেন আমরা বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করব?

উপরের লেখাগুলো পড়ার মাধ্যমে হয়তো এতক্ষণে বুঝতে পেরেছেন যে, কেন আমরা আমাদের বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করব। তারপরও সম্পর্কে আরেকটু বিস্তারিত তুলে ধরার চেষ্টা করছি। 

বিভিন্ন কারণে আমাদেরকে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই অথবা যাচাই করা উচিত। যেমন ধরুন, যেকোনো ধরনের অফিসিয়াল কাজ হতে পারে সেটা আর চাকরি, পাসপোর্ট তৈরি, প্রাতিষ্ঠানিক কর্মকলাপ, বিভিন্ন ধরনের জিনিস তৈরির কাজে জন্মনিবন্ধন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। 

আপনি যদি চাকরিতে যোগদান করতে যান অথবা পাসপোর্ট তৈরি করতে যান, সে ক্ষেত্রে ওই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ব্যক্তিরা আপনার তথ্য ভেরিফাই করার ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন আসল কিনা নকল সেটি চেক করবে। জন্ম নিবন্ধন এর সাথে দেওয়া আপনার নাম ঠিকানা ঠিক আছে কিনা সেটি চেক করবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আপনার চাকরি অথবা পাসপোর্ট হবে। অন্যতায় কোন প্রকার গরমিল পাওয়া গেলে চাকরি পাওয়া এবং পাসপোর্ট তৈরি থেকে বঞ্চিত হবেন। 

আবার অন্যদিকে বর্তমানে টাকার বিনিময় একদল প্রতারক সম্পূর্ণ ভূয়া জন্ম নিবন্ধন দিয়ে থাকেন। সেক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন ভেরিফাই করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নয়তো ভবিষ্যতে বিপদের আশঙ্কা থেকে যায়।

এছাড়া আপনার জন্ম নিবন্ধনটি যদি কোন কারণে হারিয়ে যায়। আর আপনার কাছে যদি জন্ম নিবন্ধন এর 17 সংখ্যার কোডটি এবং জন্মতারিখ যদি মনে থাকে অথবা কোথাও লিখে রেখে দেন। সেক্ষেত্রে উক্ত 17 সংখ্যা এবং জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন। এমনকি আপনার হারিয়ে যাওয়া জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইন থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। 

তাছাড়া আরও বিভিন্ন কারণে আমাদেরকে আমাদের জন্ম নিবন্ধন ভেরিফাই করে দেখা উচিত। নিশ্চয়ই আপনিও হয়তো কোনো একটি সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন, যার কারণে আপনি অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করার উপায় সম্পর্কে জানতে এখানে এসেছেন।

অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করার উপায়  

সর্বপ্রথম গুগলে গিয়ে Online birth certificate check লিখে সার্চ করুন। তারপর https://everify.bdris.gov.bd/ ওয়েব সাইটটিতে প্রবেশ করুন। অথবা আপনি চাইলে এখানে সরাসরি এই লাল লেখাটির উপরে ক্লিক করে প্রবেশ করতে পারেন। 

  • এবার প্রথমে থাকা “Birth Registration Number” নাম্বারের বক্সটিতে আপনি আপনার 17 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন কোডটি নির্ভুলভাবে বসিয়ে দিন। 
  • এরপর দুই নম্বর বক্সটিতে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী জন্মের বছর - জন্মের মাস - জন্মের তারিখ বসিয়ে দিন। 
  • তিন নং বক্সটিতে ক্যাপচার গাণিতিক যোগ বা বিয়োগ সমাধান করে “Search” বাটনে ক্লিক করুন। নিচের ছবিটি ভালোভাবে লক্ষ্য করলেই এ ব্যাপারে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে যাবেন।
অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই

ঠিক উপরে যে ছবিটি আমি আপনাদের জন্য দিয়েছি সেভাবে কাজ করে আপনি জন্ম নিবন্ধন চেক করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি যদি আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন কপি ডাউনলোড করতে চান সেটাও সম্ভব। অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করতে সেইসাথে ডাউনলোড করতে যা যা করতে হয় সেই সম্পর্কে বিস্তারিত নিয়ে সুন্দর একটি ভিডিও দিয়েছি। ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে এ সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে বুঝতে পারবেন।


শেষ কথা,

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড এবং অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট ভেরিফাই করতে বা যাচাই করতে যে কাজগুলো করতে হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। 

আর্টিকেলটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মতামত অথবা প্রশ্ন থেকে থাকে, তাহলে নির্দ্বিধায় আপনি আমাদেরকে আপনার প্রশ্নগুলো  নিচের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আমরা আপনার প্রশ্নের যথাযথ উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। 

1 মন্তব্যসমূহ

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

নবীনতর পূর্বতন