গুগোল ডকস হচ্ছে অনলাইন ফ্রি সার্ভিস। যা সম্পর্কে আমাদের সবার অন্ততপক্ষে সাধারণ জ্ঞান থাকা উচিত। অথচ এটি একটি ফ্রী পাওয়ারফুল সার্ভিস হওয়া সত্বেও আমরা অধিকাংশ এটি সম্পর্কে মানুষই জানিনা। যেকোনো বিষয় নোট করা থেকে শুরু করে লেখালেখি করার জন্য সকল ধরনের টেক্সট ভিত্তিক সকল ধরনের কাজে গুগোল ডকস ব্যবহার করা হয়।তাই দেরি না করে জেনে নিন গুগোল ডকস কি? গুগোল ডকস ব্যবহারের নিয়ম সুবিধা ও অসুবিধা।

Google Docs ব্যবহারের নিয়ম ও সুবিধা জানুন
2006 সাল থেকে গুগোল ডকস এর ফ্রী অ্যাপ্লিকেশন সার্ভিসটি চালু করা হয়েছে ।যাকে তুলনা করা হয় অনলাইন ভার্সনের মাইক্রোসফট অফিস ওয়ার্ড এর সাথে।গুগোল ডকস এর মাধ্যমে একাধিক ডিভাইসে একই ফাইল নিয়ে কাজ করা সম্ভব হয়।এটিতে স্টোরিজ কোন জায়গা দখল করে না।অনলাইনে প্রোগ্রাম হওয়ার কারণে গুগোল ডকস এর ফাইলগুলি ক্লাউডে জমা হয়ে থাকে।

এছাড়াও গুগোল ডকস ও অন্যান্য সুবিধা রয়েছে।গুগোল ডকস এর মাধ্যমে একাধিক লোক একই ডকুমেন্টে কাজ করতে পারেন যা অন্যদের সাথে শেয়ার করা যায়। গুগোল ডকস এ  প্রবেশ করার জন্য আপনাকে Docs.google.com লিখে গুগোলে সার্চ দিতে হবে।এছাড়াও আইওএস অ্যাপ কিংবা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহার করে গুগোল ডক্সের সুবিধা ভোগ করা যায়।গুগোল ডকস এর ফাইল তৈরি করে হোমপেজ থেকেও প্রবেশ করা যাবে।

গুগোল ডকস এর একাউন্ট খুলতে হলে সর্বপ্রথম আপনার জিমেইল একাউন্ট থাকতে হবে।যে কেউ যেকোনো সময় বিনামূল্যে গুগোল একাউন্ট খুলে গুগোল ডকস এর সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।গুগোল একাউন্ট খোলা সম্পর্কে আপনারা ইউটিউবে সার্চ করলে পেয়ে যাবেন।

গুগোল ডকস এডিটিং ইন্টারফেসের একটি ছবি নিচে দেওয়া হল। ইন্টারফেসের উপরে দেখতে পাবেন বিভিন্ন মেনুবার রয়েছে। যেমন ধরুন ফাইল, এডিট, ভিউ, ইনসার্ট, ফরমেট ইত্যাদি আপনি ইন্টারফেসের মেনুবারের একটি পাবেন।

গুগোল ডকস কি গুগোল ডকস ব্যবহারের নিয়ম সুবিধাও অসুবিধা জানুন


গুগোল ডকস এর সুবিধা 

নতুন কিছু ডকুমেন্ট তৈরি করা গুগল ডক্সে মাধ্যমে খুব সহজ। অর্থাৎ গুগল ডক্স এ প্রবেশ করে আপনাকে Blank অপশনে ট্যাপ করে নতুন গুগোল ডকস নতুন ডকুমেন্ট তৈরি করতে হবে।এছাড়াও আপনি মোবাইলের মাধ্যমে (+)আইকনে টেপ করে আপনি নতুন ডকুমেন্ট তৈরি করতে পারবেন।

গুগোল ডকস এ ব্ল্যাংক ডুকুমেন্ট তৈরির পাশাপাশি রেডিমেড টেমপ্লেট ও পাওয়া যায়।এছাড়াও Template gallery অপশনের মাধ্যমে আপনি লেটার,বিজনেস নোট,সিভি ইত্যাদি সম্পর্কিত টেমপ্লেট দেখতে পাবেন।

আবার আপনি যদি ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করে গুগল ডক্সে প্রবেশ করতে চান তাহলে আপনি যেকোনো এড্রেস বারে docs. New লিখে এন্টার করলে আপনি সরাসরি নতুন ডগস ডকুমেন্টে প্রবেশ করতে পারবেন।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ডকুমেন্টে ইমপোর্ট

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড হচ্ছে ওয়ার্ড প্রসেসিং ও ডকুমেন্ট প্রসেসিং এই জন্য একটি জনপ্রিয় সফটওয়্যার।গুগল ডগস এ মাইক্রোসফট কিংবা অন্য যে কোন সাপোর্টেড ডকুমেন্ট ইমপোর্ট করতে-
  • আপনার স্ক্রিনের বাম দিকে থাকা নিউ বাটনে ক্লিক করে। 
  • ড্রপডাউন মেনু থেকে ফাইল আপলোড সিলেক্ট করে ক্লিক করুন।
  • এই পর আপলোড করা ফাইলে ডাবল ক্লিক করুন।
  • Open with অপশন এ ক্লিক করে গুগোল ডকস এ উক্ত ডকুমেন্ট ওপেন করুন। 

স্পেল ছেক 

এছাড়াও কি-বোর্ডের মাধ্যমে আপনি শর্টকাট ব্যবহার করে গুগোল ডকস এর ব্যবহার ত্বরান্বিত করতে পারবেন-
  • দি কোন লেখা ইটালিক করতে চান তাহলে ওই লেখা সিলেক্ট  করে ''ctrl+i'' চাপুন।
  • লেখা বোল্ড করতে চাইলে ''ctrl+b'' চাপুন।
  • কোন লিংক ইনসার্ট করতে চাইলে ''ctrl+k''চাপুন। 
  • লেখা কপি করার জন্য ''ctrl+c'' চাপুন।
  • এবং লেখা পেস্ট করতে চাইলে ctrl +v চাপুন

ডকুমেন্ট ডাউনলোড 

গুগোল ডকস অ্যাপ এর ও রয়েছে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর মত রয়েছে স্পেল চেকার।গুগোল ডকস এ রয়েছে প্রডিক্টিভ টাইপিং ও কমন টাইপো এর মত অটো কারেকশন ফিচার রয়েছে।স্পিড চেক করতে আপনাকে গুগোল ডকস এ Tools মেনু তে ক্লিক করে 'Sleeping And grammar' সিলেক্ট করুন।এছাড়াও আপনি শর্টকাট করতে চাইলে কিবোর্ড এর মাধ্যমে ''Control+ALT+X''এর মাধ্যমে আপনি স্পেল চেকার ব্যবহার করতে পারবেন।

গুগোল ডকস অফলাইন

গুগল ডক্সে ডকুমেন্ট বিভিন্ন পর্যায়ের সংরক্ষণ রাখার পাশাপাশি অফলাইনেও অ্যাক্সেস করার জন্য অপশন রয়েছে।গুগল একাউন্টের ডগস ডকুমেন্ট অফলাইন অ্যাক্সেস করা যায় প্রতি কম্পিউটারে লগইন থাকলে।

আপনি যদি অফলাইনে গুগোল ডকস অ্যাক্সেস করতে চান তাহলে আপনাকে গুগোল ডকস হোমপেজে প্রবেশ করতে হবে।তারপর স্ক্রিনের ডান দিকে থাকা টপ কর্ণারে হ্যামবার্গার মেনুতে প্রবেশ করে সেটিংস অপশনে ক্লিক করুন।

আপনি সেটিংস এ প্রবেশ করার পর বিভিন্ন রকম অপশন দেখতে পাবেন।উক্ত অপশন এর পাশে গ্রে সুইচ দেখতে পাবেন সেটি আপনি অন করে দিন।তারপর আপনি ফিচারটি অন করার পর আপনার ডকস ডকুমেন্ট সমূহ অফলাইনে অ্যাক্সেস করতে পারবে।

টেক্সট ফরমেটিং 
গুগোল ডকস ব্যবহার করে আপনি যে কোন ডকুমেন্ট এডিটর এর মত ফরম্যাট করতে পারবেন।লেখা বোল্ড করা থেকে শুরু করে ফন্ট সাইজ ইত্যাদি অনেক ফিচার রয়েছে গুগোল ডকস এ।গুগোল ডকস এর  'Format Option' অপশন সিলেক্ট করলে এসব অপশন গুলো দেখতে পাবেন।

ডকুমেন্ট ডাউনলোড 

গুগোল ডকস এর মাধ্যমে কোন ফাইলে কাজ শেষ করার পর বিভিন্ন ফরম্যাটে ডাউনলোড করা যায়।এইচটিএমএল, টেক্সট, পিডিএফ ইত্যাদি অনেক ফরমেট রয়েছে যেগুলো গুগোল ডকস ডাউনলোড করে রাখা যায়। গুগোল ডকস এ থাকা ডকুমেন্ট ডাউনলোড করার জন্য আপনি ইন্টারফেস স্ক্রিনে file মেনুতে ক্লিক করুন।

এরপর Download/ Download as অপশন এর উপর মাউস কার্সর নিয়ে গেলে ডাউনলোড করার জন্য একাধিক ফরমেট আসবে। আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী যে কোন ফরম্যাট সিলেক্ট করে গুগোল ডকস ডকুমেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন।

গুগোল ডকস কি গুগোল ডকস ব্যবহারের


ফাইন্ড এন্ড রিপ্লেস 

কোন শব্দ বা তথ্য খুঁজে পাওয়ার জন্য Find and replace ব্যবহার করা হয়।আপনি এই ফিচারটি ব্যবহারের মাধ্যমে নির্দিষ্ট শব্দ খুঁজে পাওয়ার পাশাপাশি শব্দের স্থলে অন্য কোন শব্দ রিপ্লেস করা যাবে।ডকুমেন্টের যদি কোনো শব্দ ভুল কিংবা তথ্য ভুল প্রধান করা হলে রিপ্লেস ফিচারটি ব্যবহার করে তা ঠিক করা যায় ।

'Find and replace'' অপশনটি ব্যবহার করতে edit এ ক্লিক করুন।এরপর ফাইন্ড এন্ড রিপ্লেস সিলেক্ট করে Find বক্সে যে ওয়ার্ড খুঁজে পেতে চান তা লিখে Find বক্সে ক্লিক করুন। এছাড়াও আপনি যদি কিবোর্ড এর মাধ্যমে খুব দ্রুত ভাবে করতে চান তাহলে ctrl+f  ক্লিক করে ডগস এর মধ্যে চিহ্নিত করতে পারবেন।

ডকুমেন্ট শেয়ার করা 

গুগোল ডকস এর মাধ্যমে যে কোনো ডকুমেন্ট অন্যদের দেখানো যাবে শেয়ার ফিচারের মাধ্যমে।এমনকি একই সাথে অগণিত ব্যক্তি একই ডকুমেন্ট কোলাবোরেট করতে পারবেন গুগোল ডকস এর মাধ্যমে। কোলাবরেশন ফিচারটি ডিটেইলস ডকুমেন্ট রিয়েল টাইমে আপডেট হয়ে থাকে।

আপনি যদি কোনো ডকুমেন্ট শেয়ার করতে চান তাহলে গুগোল ডকস এর File মেনুতে ক্লিক করে share অপশনে ক্লিক করুন আপনি যাকে ডকুমেন্ট পাঠাতে চান কিংবা শেয়ার করতে চান  তার এড্রেস টাইপ করে Done এ ক্লিক করুন। আবার আপনি Get Shareable link অপশন এ ক্লিক করে লিংক এর সাহায্যে যে কোন ব্যক্তির সাথে আপনি গুগোল ডকস এ ডকুমেন্ট শেয়ার করতে পারেন।

পরিশেষে

আজকের টপিকে গুগল ডকস কি? গুগোল ডকস এর সুবিধা অসুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। আশাকরি আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন এবং আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা সবাই উপকৃত হতে পেরেছেন।

আর্টিকেলটি সম্পর্কে যদি আপনাদের কোন মতামত থাকে বা কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের নিচের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আমরা আপনার প্রশ্নের যথাযথ সঠিক উত্তর দিতে চেষ্টা করব-ধন্যবাদ।

Post a Comment

ব্যাকলিংক পাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ইরিলেভেন্ট লিংক শেয়ার করার চেষ্টা করবেন না । স্পামিং করা থেকে বিরত থাকুন । আপনার লিংকটি যুক্তিসঙ্গত না হলে সেটি অ্যাপ্রুভ করা হবে না ।

নবীনতর পূর্বতন